#Post ADS3

advertisement

আপেল সিডার ভিনেগার,আপেল সিডার ভিনেগার তৈরির নিয়ম,চুলের যত্নে আপেল সাইডার ভিনেগার,অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার,মুখের ব্রন কমাতে আপেল সিডার ভিনেগারের ব্যবহার

 

আপেল সিডার ভিনেগারের নামটি আজকাল বেশ শুনতে পাওয়া যায়। নানা স্বাস্থ্য উপকারিতা থাকায় অনেকেই নিয়মিত আপেল সিডার ভিনেগার খেয়ে থাকেন।


তবে শুধু স্বাস্থ্য সমস্যা দূর করার জন্য নয়, ত্বক এবং চুলের যত্ন নিতেও এর জুড়ি নেই। ত্বক এবং চুলের যত্নে আপেল সিডার ভিনেগারের কিছু কার্যকারী ব্যবহার চলুন জেনে নেওয়া যাক।


* খুশকি দূর করতে: চার কাপ পানিতে আধকাপ আপেল সিডার ভিনেগার নিন। এরপর একটি তুলোর বল তাতে ভিজিয়ে মাথার তালুতে ম্যাসাজ করে লাগান। এবার একটি টাওয়েল গরম পানিতে ভিজিয়ে নিন। এই টাওয়েল দিয়ে মাথা পেঁচিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুইবার এই পদ্ধতি অ্যাপ্লাই করুন। দেখবেন এক মাসের মধ্যে খুশকি গায়েব হয়ে গেছে।


* চুল উজ্জ্বল করতে: চুলকে উজ্জ্বল ও চাকচিক্যময় করতে চান? তাহলে এ কাজেও আপেল সিডার ভিনেগার সহায়ক হতে পারে। এককাপ পানিতে এক টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে স্প্রে বোতলে ভরে নিন। গোসলের পর ভেজা চুলে মিশ্রণটি স্প্রে করুন।


* সানবার্ন রোধে: ত্বকে একবার সানবার্ন হলে তা দূর করা বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। ত্বকের এই রোদেপোড়া দাগ দূর করতে সাহায্য করবে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার। সমপরিমাণ ভিনেগার এবং ঠাণ্ডা পানি একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি ত্বকে ম্যাসাজ করে লাগান। এটি দিনে কয়েকবার ব্যবহার করুন।


* বয়সের ছাপ কমাতে: আপেল সিডার ভিনেগার সময় পরিক্রমায় বয়সের ছাপ হালকা করতে পারে। ত্বকের যেখানে বয়সের ছাপ পড়েছে, সেখানে অল্প পরিমাণ আপেল সিডার ভিনেগার লাগিয়ে ঘুমিয়ে পড়ুন এবং সকালে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকে জ্বালা করলে পানি মিশিয়ে ব্যবহার করুন।


* স্কিন টোনার: তৈলাক্ত ত্বকের জন্য আপেল সিডার ভিনেগার বেশ উপকারী। এর আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড ত্বকে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করে। এছাড়া ত্বকের পিএচ লেভেলের ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। আধকাপ আপেল সিডার ভিনেগার এবং এর সঙ্গে পানি মিশিয়ে নিন। আপনি চাইলে কয়েক ফোঁটা এসেনশিয়াল অয়েল মেশাতে পারেন। একটি তুলোর বল এতে ভিজিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন। এটি কয়েক মিনিট ত্বকে রেখে দিন। দিনে দুইবার ব্যবহার করুন। আপনি যদি স্বাভাবিক ত্বকের অধিকারী হন তাহলে এক অংশ আপেল সিডার ভিনেগার এবং চার অংশ পানি মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।


* শেভিংয়ের জ্বালাপোড়া কমাতে: শেভ করলে ত্বকে লালতা ও প্রদাহ হয়ে থাকে। কিন্তু শেভিংয়ের আগে ত্বকে আপেল সিডার ভিনেগার লাগিয়ে নিলে প্রদাহ, লালতা কম হবে। এককাপ পানিতে এক চা-চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ কটন বলে লাগিয়ে শেভিংয়ের আগে ত্বকে ব্যবহার করুন।


* নখের হলদেটে ভাব দূর করতে: বিভিন্ন কারণে নখ হলেদেটে হয়ে যায়। নখের এই হলদেটে ভাব দূর করতে আধকাপ আপেল সিডার ভিনেগার কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণে আঙুল ১৫-২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলন। অলিভ অয়েল দিয়ে আঙুলগুলো ম্যাসাজ করুন। এটি দিনে দুইবার ব্যবহার করুন।


* চুলের রুক্ষতা দূর করতে: রুক্ষ, শুষ্ক চুল নিয়ে চিন্তিত? চুলের এই রুক্ষতা দূর করে চুলকে শাইনি করে তুলতে সাহায্য করবে আপেল সিডার ভিনেগার। চারকাপ পানিতে আধকাপ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে নাড়ুন। তারপর শ্যাম্পু ব্যবহারের পর মিশ্রণটি দিয়ে মাথা ভিজিয়ে কিছু সেকেন্ড অপেক্ষা করুন। তারপর ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন।


* ব্রণ দূর করতে: এককাপ পানিতে এক চা-চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন। একটি তুলোর বল মিশ্রণে ভিজিয়ে নিন। এটি ব্রণের উপর রাখুন কয়েক মিনিট। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আপেল সিডার ভিনেগারে অ্যান্টিসেপ্টিক, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে যা ব্রণ সাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়া এটি ত্বকের পিএইচ লেভেলের ভারসাম্য বজায় রাখে।


* চকচকে দাঁত পেতে: আপেল সিডার ভিনেগার কেবল ত্বক নয়, দাঁতকেও সৌন্দর্যমণ্ডিত করতে পারে। একটি কাপে সমান পরিমাণ আপেল সিডার ভিনেগার ও পানি মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ করার আগে কুলকুচা করুন। এর ফলে দাঁতের দাগ দূর হবে ও মুখের জীবাণু ধ্বংস হবে।


তথ্যসূত্র: হেলথ লাইন

Post a Comment

0 Comments

advertisement

advertisement