লিঙ্গ লম্বা ও মোটা করার স্থায়ী ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি, লিঙ্গ কীভাবে মোটা করবেন,ছেলেদের লিঙ্গ বড় করার কার্যকর ও পরীক্ষিত পদ্ধতি সম্পর্কে জানুন,লিঙ্গ বড় করারউপায়,রুষাঙ্গের ব্যায়াম করে মাত্র ৭ দিনে

লিঙ্গ লম্বা ও মোটা করার স্থায়ী ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি, লিঙ্গ কীভাবে মোটা করবেন,ছেলেদের লিঙ্গ বড় করার কার্যকর ও পরীক্ষিত পদ্ধতি সম্পর্কে জানুন,লিঙ্গ বড় ক
Please wait 0 seconds...
Scroll Down and click on Go to Link for destination
Congrats! Link is Generated
লিঙ্গ লম্বা ও মোটা করার স্থায়ী ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি, লিঙ্গ কীভাবে মোটা করবেন,ছেলেদের লিঙ্গ বড় করার কার্যকর ও পরীক্ষিত পদ্ধতি সম্পর্কে জানুন,লিঙ্গ বড় করারউপায়,রুষাঙ্গের ব্যায়াম করে মাত্র ৭ দিনে


Subject : লিঙ্গ লম্বা ও মোটা করার স্থায়ী ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি, লিঙ্গ কীভাবে মোটা করবেন, ছেলেদের লিঙ্গ বড় করার কার্যকর ও পরীক্ষিত পদ্ধতি সম্পর্কে জানুন,লিঙ্গ বড় করার উপায়,রুষাঙ্গের ব্যায়াম করে মাত্র ৭ দিনে,মাত্র ১০ দিনে লিঙ্গ বড় করার উপায়, লিঙ্গ বড় করার কার্যকর ও পরীক্ষিত পদ্ধতি সম্পর্কে জানুন,লিংগ মোটা করার উপায়,৭ দিনে লিঙ্গ বড় করার উপায়

লিঙ্গ বড় করার উপায় নিয়ে আমাদের সমাজে অনেক জল্পনা-কল্পনা রয়েছে। তাই পুরুষাঙ্গের ব্যায়াম করে ৭ দিনে পুরুষাঙ্গ বৃদ্ধির উপায় নিয়েই আজকের আমাদের এই পোস্ট।

পুরুষাঙ্গ (penis) পুরুষের একটি অতি গুরুত্বপূর্ন অঙ্গ। এই অঙ্গটি শুধু একজন পুরুষকে লিঙ্গাকারে চিহ্নিত করে না বরং সন্তানগ্রহনের মত গুরুত্বপূর্ন কাজের মাধ্যম এটি। কিন্তু এই পুরুষাঙ্গ নিয়েই আমাদের চিন্তার কোন শেষ নেই।

বয়ঃসন্ধির পর আস্তে আস্তে আমরা নিজেদের পুরুষাঙ্গ নিয়ে চিন্তিত হয়ে পরি কোন না কোন কারনে। যেমনঃ অধিকাংশ মানুষ মনে করে তাদের পুরুষাঙ্গ সাইজে (penis size) ছোট, এই নিয়ে তাদের দুশ্চিন্তারও কমতি নেই।

(ads1)

কিন্তু পুরুষাঙ্গের আকার (penis size) আকৃতি এসব কিছু নির্ভর করে জিন, জাতি, অঞ্চলসহ নানান দৈহিক, আঞ্চলিক, আবহাওয়া কেন্দ্রিক কারনে। এর কারনে আপনি ইন্টার্নেটে ইউরোপিয়ান অথবা আফ্রিকানদের কথা ভেবে মন মরা হওয়াটা বোকামি ছাড়া কিছু না।

আর আপনি যদি চিন্তা করেন সাইজ বড় হলেই চরম তৃপ্ত দিতে সক্ষম আপনার সঙ্গিকে সেটিও ভূল। বরং বড় সাইজের পেনিস সঙ্গিকে ব্যাথা দিতে পারে। উপভোগ্য যৌনক্রিয়া (Sexual activity) করতে বড় পুরুষাঙ্গ যে হতেই হবে ব্যাপার টা এমন না ।

স্বাভাবিক সাইজের মানদণ্ড কি? প্রশ্ন থেকে যায় । আপনার পেনিস (Penis) যদি উত্থিত অবস্থায় ১১.৪৬ সেন্টিমিটার অথবা ৪.৫ ইঞ্চি হয়ে থাকে তাহলে বুঝে নিবেন এটি স্বাভাবিক। তবে ৪ ইঞ্চি হলেও আপনি সঙ্গিকে তৃপ্ত (Sexual satisfaction) করতে পারবেন। কেননা সাইজের চেয়ে ডিওরেশনটাই (Sex duration) মুখ্য। যেটি মোটামুটি ৭-১০ মিনিট হয়ে থাকে।

লিঙ্গ বড় করার উপায় – মাত্র ৭ দিনে লিঙ্গ বড় করার উপায় অভিনব উপায়

ব্যায়ামবর্ণনা
শেকিংলিঙ্গের গোড়ার (Penis root) দিকে দুই আঙ্গুল দিয়ে ধরতে হবে।তারপর আস্তে আস্তে ঝাকানো শুরু করবেন গতি বাড়িয়ে। এর ফলে ইরেকশন হতে পারে। সেক্ষেত্রে লিঙ্গ শিথিল পর্যন্ত সুযোগ দিয়ে আবার শুরু করবেন।এভাবে ২০০ বার পর্যন্ত করতে হবে।
জেল্কিংপ্রথমেই আপনাকে যা করতে হবে তা হলো, আপনার পেনিসটিকে ভালো মত ধুয়ে নিন।যাতে করে কোনো ময়লা ও ঘাম না থাকে।তারপর একটু জেল জাতীয় কোন তরল কিংবা তেল আপনার পেনিসে মাখিয়ে নিন।আপনার বুড়ো আঙ্গুল ও তর্জনী ধরে গোল সাইন করুন এবং পেনিসের গোড়াতে ধরুন। একটু জোরে চেপে ধরে আস্তে আস্তে সামনের দিকে আনুন। অনেকটা হস্তমৈথুনের মত। তবে ভুলেও হস্তমৈথুন করবেন না যেন। এমন ৫০ বারের মত করুন। 
স্ট্রেচিংপ্রথমে আপনার লিঙ্গের মাথাটি আলতো করে ধরুন।তারপর শিথিল অবস্থাতেই সামনের দিকে টেনে ধরুন। যতটুকু করতে পারুন ধরুন।২০ সেকেন্ড ধরে রাখুন এভাবে। দিনে ২০ বার করে করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

পুরুষাঙ্গ বৃদ্ধির উপায় – পুরুষাঙ্গের ৩টি ঘরোয়া ও শতভাগ কার্যকরী ব্যায়াম

পৃথিবীতে মানুষ নিজের লিঙ্গ (penis) নিয়ে অহেতুক হীনম্মন্যতা কাজ করে।পুরুষাঙ্গ মোটা ও বড় হবার পিছনে একটি জিনিস দায়ি হয়ে থাকে তা হচ্ছে রক্ত প্রবাহ (blood circulation) । আপনার যত বেশি রক্ত প্রবাহ বেশি হবে এটি ততটুকু আকার আকৃতি বাড়বে।

পুরুষের কাছে বড় ও মোটা লিঙ্গ অধিক কাম্য । বৈজ্ঞানিক ও নিয়মতান্ত্রিক ভাবে লিঙ্গ মোটা ও বড় করা সম্ভব। সবচেয়ে ভালো ও কার্যকরী পন্থা হল ব্যায়াম (Exercise) করা। আজ আমি কিছু ব্যায়ামের কথা বলব যেগুলো আপনি যদি নিয়মিত করে থাকেন আপনার পেনিসের রক্ত (Penis blood circulation) প্রবাহ বৃদ্ধি পেয়ে এর আকৃতি বৃদ্ধি সহ বাকা লিঙ্গ (curved penis)

সমান্তরাল করতেও সাহায্য করবে। এছাড়া ভালভাবে উত্থিত (Erection) হওয়া, পূর্ন বীর্যপাতের (Full Ejaculation ) জন্যও উপকারি। চলুন দেখা যাক।

(ads2)


১। শেকিং

হয়ত শুনে হস্তমৈথুন (Musterbation) বলে মনে হচ্ছে। আদতে আসলে অনেকটা অমনই কিন্তু আপনি হস্তমৈথুনের (Musterbation) উদ্দেশ্যে করবেন না। লিঙ্গের গোড়ার (Penis root) দিকে দুই আঙ্গুল দিয়ে ধরতে হবে।

তারপর আস্তে আস্তে ঝাকানো শুরু করবেন গতি বাড়িয়ে। এর ফলে ইরেকশন হতে পারে। সেক্ষেত্রে লিঙ্গ শিথিল পর্যন্ত সুযোগ দিয়ে আবার শুরু করবেন। এভাবে ২০০ বার পর্যন্ত করতে হবে। এতে করে আপনার পেনিসের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে।

২। জেল্কিং

এই পদ্ধতি অবলম্বন করার ক্ষেত্রে প্রথমেই আপনাকে যা করতে হবে তা হলো, আপনার পেনিসটিকে ভালো মত ধুয়ে নিন।যাতে করে কোনো ময়লা ও ঘাম না থাকে। তারপর একটু জেল জাতীয় কোন তরল কিংবা তেল আপনার পেনিসে মাখিয়ে নিন।

পুরুষাঙ্গ শিথিল (Loose penis) অবস্থায় থাকবে। আপনার বুড়ো আঙ্গুল ও তর্জনী ধরে গোল সাইন করুন এবং পেনিসের গোড়াতে ধরুন। একটু জোরে চেপে ধরে আস্তে আস্তে সামনের দিকে আনুন। অনেকটা হস্তমৈথুনের (Musterbation) মত। তবে ভুলেও হস্তমৈথুন (Musterbation) করবেন না যেন।

এতে কোন লাভ হবে না ক্ষতি ছাড়া। এমন ৫০ বারের মত করুন। এভাবে টানা করে যান। কয়েকমাস এভাবে করার পর নিজেই বুঝতে পারবেন কতটা উন্নতি হলো। এক্সারসাইজের সময় হস্ত মৈথুনের (Musterbation) প্রবল ইচ্ছা জাগ্রত হতে পারে।

সেক্ষেত্রে নিজেকে নিয়ন্ত্রন করতে হবে। একই সময় হস্ত মৈথুন এবং এক্সারসাইজ (Exercise) একই সময়ে চলতে পারে না । আপনার এক্সারসাইজ কোন কাজেই আসবে না যদি না আপনি হস্তমৈথুন (Musterbation) করেন।

৩। স্ট্রেচিং

আপনার লিঙ্গের মাথাটি (Penis head) আলতো করে ধরুন প্রথমে। তারপর শিথিল অবস্থাতেই সামনের দিকে টেনে ধরুন। যতটুকু করতে পারুন ধরুন। ২০ সেকেন্ড ধরে রাখুন এভাবে। দিনে ২০ বার করে করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে। এটিও পেনিসের (penis ) এর জন্য ভালো একটি এক্সারসাইজ। এর ফলে ধীরে ধীরে আপনার পুরুষাঙ্গ দীর্ঘতায় বাড়বে৷

পুরুষাঙ্গের ব্যায়াম এর কিছু জটিলতা ও ঝুঁকি

লিঙ্গ বড় করার উপায় নিয়ে তো অনেক আলোচনা হলো। কিন্তু এর মধ্যেও কিছু জটিলতা ও ঝুঁকি রয়েছে।

কোন কিছুই অধিক মাত্রায় করা বিপদ ডেকে আনে । দ্রুত ফলাফল পেতে আপনি যদি আপনার পেনিসের সাথে জোর জবস্তি করেন, সেক্ষেত্রে পেনিসের টিস্যু (Penis tissue) ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

পেনিস জয়েনিং লিগামেন্টেও (Penis joining ligament) ক্ষতি হলে উত্থিত (Erection) হতে গেলে জটিলতা হতে পারে। অনেক্ষেত্রে উত্থিত (Erection) হতেও সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই খুব বেশি অতিরিক্ত কিছু না করাই উত্তম ।

(ads1)


এইসকল এক্সারসাইজ করতে গেলে কিছু কিছু ক্ষেত্রে জটিলতা দেখা দিতে পারে । এগুলো থেকে সাবধান হতে হবে। এক্সারসাইজ গুলো করার সময় যা যা হতে পারে তা হলো,

  • পুরুষাঙ্গ ( penis) এবং হাত জীবানুমুক্ত না করে এক্সারসাইজ করলে চুলকানি ও ফুসকুড়ি হতে পারে।
  • হালকা অধিক পরিমানে এক্সারসাইজ করলে হাতের আঙ্গুলের ঘষায় পেনিসের চামড়ার ছাল ছিড়ে যেতে পারে।
  • লিঙ্গমুণ্ডে লাল রঙ এর স্পট দেখা দিতে পারে।
  • অনেক ক্ষেত্রে লিঙ্গের অসারতা দেখা দিতে পারে ।
  • লিঙ্গের গায়ে কালশিটে দাগ ও লিঙ্গের শিরা কালো হয়ে যেতে পারে।

একটি কথা মাথায় রাখবেন , লিঙ্গের ব্যায়ামের কারণে রাতারাতি আপনার লিঙ্গ মোটা ও বড় হবে এমন টা আশা না করাই ভালো। ব্যায়ামের মাধ্যমে আপনি আপনার লিঙ্গের স্বাস্থ্য ও কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে পারবেন, এ বিষয়ে কোনো দ্বিমত নেই।

(ads2)


পরিশেষে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয় তা হলো, যে কোন পদ্ধতি নিয়ে লিঙ্গের এক্সারসাইজ শুরু করার আগে অবশ্যই এবং অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। কেননা এক এক জনের জন্য এক একটি পদ্ধতি কার্যকর।

তাই এক্সারসাইজ শুরু করার আগে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিতে হবে। । আর হ্যা, অবশ্যই নিয়মিতভাব।।এক্সারসাইজ করতে হবে। হবে। অনিয়মিত এক্সারসাইজ কখনোই আপনাকে কাংখিত ফলাফল দিবে না ।

You Can Email Us Questions & Comments: info@healthcitylife.com

Post a Comment

Cookie Consent
We serve cookies on this site to analyze traffic, remember your preferences, and optimize your experience.
Oops!
It seems there is something wrong with your internet connection. Please connect to the internet and start browsing again.
AdBlock Detected!
Site is Blocked
Sorry! This site is not available in your country.