Mebeverine Hcl

ঔষধের কার্যাবলী

Health City Life এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

Material: Mebeverine hydrochloride BP 135 mg per tablet.

Instructions: For the avoidance of intestinal symptoms, and its use in other conditions such as long-term painful colon, spastic constipation, inflammation of the colon, stomach ulcers, abdominal disorders and chronic undetermined diarrhea.
 Doses: For adult, old age and 10-year-old children: 1 tablet on 3 times a day. 20 minutes before eating Mebeverine is the most effective If desired results are achieved after a few weeks of use, the levels can be gradually reduced. If there is no dimension, then the scale should be taken as quickly as possible. At the next level, the eliminated level should be avoided and the regularity should be availed as per the provisions. No amount can be doubled in any way. 
Side effects and warning: Generally metevirin is intuitive. In addition, some side effects such as skin rashes, arterikaria and ngoidema may occur. Caution should be taken if there is an allergy to poropharya or mybivirin or any other medication. 
Directions: There is no information available for every direction till now. Response with other drugs: No information on the reaction with other drugs is yet to be found.
 Use during pregnancy and breastfeeding: no teratogenesis of the animal tested. Moreover, general care should be taken while using during pregnancy. Megavirin does not accumulate in breast milk at the given level. 
Use of children: Mebavirin is not directed at children under 10 years of age.
উপাদান : প্রতি ট্যাবলেটে আছে মেবেভেরিন হাইড্রোক্লোরাইড বিপি ১৩৫ মি.গ্রা.।

নির্দেশনা : অন্ত্রের অস্বস্থিকর লক্ষণসমূহ হতে পরিত্রাণের জন্য এবং অন্যান্য অবস্থাসমুহে এর ব্যবহার যেমন- দীর্ঘমেয়াদী যন্ত্রনাদায়ক কোলন, স্প্যাস্টিক কোষ্ঠকাঠিন্য, মলাশয়ের প্রদাহ, পেটের শূলবেদনা, খিল ধরা ও দীর্ঘস্থায়ী অনির্ধারিত ডায়রিয়া।

মাত্রা ও সেবনবিধি : প্রাপ্তবয়স্ক, বার্ধক্য এবং ১০ বছরের বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে: ১টি করে ট্যাবলেট দিনে ৩ বার। মেবেভেরিন খাওয়ার ২০ মিনিট পূর্বে সেবন সবচেয়ে কার্যকরী। ব্যবহারের কয়েক সপ্তাহ পরে কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া গেলে মাত্রা ধীরে ধীরে কমানো যেতে পারে। কোন মাত্রা বাদ গেলে যত দ্রুত সম্ভব মাত্রাটি সেবন করা উচিত। পরবর্তী মাত্রার সময় হলে বাদ যাওয়া মাত্রাটি পরিহার করতে হবে এবং সেবনবিধি অনুযায়ী নিয়মিত সেবন করতে হবে। কোনভাবেই মাত্রা দ্বিগুণ করা যাবে না।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ও সতর্কতা : সাধারণত মেবেভেরিন সুসহনীয়। তদুপরি স্কিন র‌্যাশ, আরটিকেরিয়া এবং এনজিওইডিমার মত কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। পোরফাইরিয়া অথবা মেবেভেরিন বা অন্য কোন ওষুধের প্রতি এলার্জি থাকলে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।

প্রতি নির্দেশনা : প্রতি নির্দেশনার ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

অন্য ওষুধের সাথে প্রতিক্রিয়া : অন্যওষুধের সাথে প্রতিক্রিয়ার কোন তথ্য এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

গর্ভাবস্থা ও স্তন্যদানকালে ব্যবহার : প্রাণীর উপর পরীক্ষার কোন টেরাটোজেনেসিটি দেখা যায়নি। তদুপরি গর্ভাবস্থায় ব্যবহারকালে সাধারণ সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। নির্দেশিত মাত্রায় মেবেভেরিন মাতৃদুগ্ধে নিঃসরিত হয় না।

শিশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহার : ১০ বছরের নিচের বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে মেবেভেরিন নির্দেশিত নয়।

Health City Life এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.