সারাদিনের কাজ শেষে রুক্ষ হাত যত্নে যা করণীয়

রূপ চর্চা রোগ ব্যাধি স্বাস্থ্য

 

সারাদিনের কাজ শেষে রুক্ষ হাত যত্নে যা করণীয়


হাত আমাদের শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। কর্মক্ষেত্র থেকে শুরু করে বাড়ির সমস্ত কাজ হাতের সাহায্যে করে থাকি।


কিন্তু আপনি যখন দিনের শেষে আপনার হাতের দিকে তাকান, তখন এগুলোকে রুক্ষ ও সংবেদনশীল দেখতে পান। হাত কেন এমন হয় এবং কি করে হাত সুন্দর ও মসৃণ করে তুলবেন, তা আপনাদের জানাবো।


হাত শুষ্ক ও সংবেদনশীল থাকার কারণ:


হাত সূর্য থেকে সুরক্ষিত না। আপনার মুখ এবং শরীরের মতো, আপনার হাত দুটোরও সূর্য থেকে সুরক্ষা প্রয়োজন। অন্যথায় বার্ধক্যজনিত লক্ষণগুলি দ্রুত দেখা দেয়।


যত্ন নিন হাতেরও

যত্ন নিন হাতেরও। ছবি: সংগৃহীত

অনেক সময় হাতের দ্বারা বিভিন্ন ভারি কাজ করা হয়। এছাড়া হাত ধোয়া এবং স্ক্রাবিংয়ের মতো কাজ যদি প্রতিদিনের রুটিনের একটি অংশ হয়, তবে হাত দ্রুত শুষ্ক হয়ে যায়।


সাবান এবং ডিটারজেন্টের মতো রাসায়নিক পদার্থ যদি ঘন ঘন হাতের সংস্পর্শে আসে তবে তা হাতের আর্দ্রতা শুষে নেয়। ফলে হাত রুক্ষ্ম এবং কড়া হয়ে পড়ে।


আপনার হাত শুষ্কতা ও রুক্ষ্মতা থেকে যেভাবে রক্ষা করবেন:


রুক্ষ্ম হাত কেবল আপনার নিজের অস্বস্তিই নয়, বরং এটি অন্যদেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করে। তবে আশার কথা হলো- কিছু স্কিনকেয়ার টিপসের সাহায্যে আপনার হাত সহজেই সুন্দর ও মসৃণ করে তুলতে পারবেন।


১. সানস্ক্রিন শুধুমাত্র মুখে নয় বরং এটি আপনার হাত এবং আঙ্গুলেও নিন। এটি দীর্ঘসময় আপনার হাতের আদ্রতা বজায় রাখবে।


মুখের ত্বকের মতোই যত্ন নিন হাতেরও

মুখের ত্বকের মতোই যত্ন নিন হাতেরও। ছবি: সংগৃহীত

২. যে সমস্ত সাবান হাত শুষ্ক করে ফেলে সেসব সাবান ব্যাবহার থেকে বিরত থাকুন। দিনে বিভিন্ন কারণে একাধিকবার হাত ধোয়ার প্রয়োজন হলে হাত ময়েশ্চারাইজ এবং হাইড্রেটেড রাখতে অ্যাডিটিভ সাবানগুলি বেছে নিন।


৩. কাজ করার জন্য হাতে গ্লাভস ব্যবহার করুন। যেহেতু থালা বাসন ধোয়া এবং মেঝে মোছার মতো অনেকগুলো কাজ এড়ানো যায় না, তাই এগুলো করার পূর্বে হাতে গ্লাভস পরে নিন। গ্লাভস হাতে ক্লিনার এবং রাসায়নিক পদার্থের সংস্পর্শে আসতে বাধা দেয়।


৪. কাজ শেষে আপনার হাতে হ্যান্ড ক্রিম লাগান। হাতের পুষ্টির জন্য রাতে হ্যান্ড ক্রিম নেওয়া হাতের যত্নের শেষ পদক্ষেপ হিসাবে যুক্ত করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.